চকরিয়ায় দুই ছিনতাইকারী আটক, গন ধোলাই দিয়ে পুলিশে সোপর্দ

EKATTOR24.NETEKATTOR24.NET
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  06:31 PM, 25 December 2020

দীর্ঘদিন ধরে চকরিয়া পৌরশহরের বিভিন্ন অলিগলিতে সক্রিয় রয়েছে বেশ কয়েকটি ছিনতাইকারী সিন্ডিকেট। এসব ছিনতাইকারীদের কবলে পড়ে অনেক হারিয়েছে নগদ টাকা, মোবাইলসহ নানা গুরুত্বপূর্ণ জিনিস। কিন্ত তেমন কোন প্রতিকার মেলেনি। পৌরশহরে ছিনতাইয়ের কারণে ব্যবসায়ীদের আতংকের মধ্যে থাকতে হয়। গতকাল বৃহস্পতিবার রাত ৯টার দিকে চকরিয়া পৌরশহরের চিরিংগা হিন্দুপাড়ায় এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।
তবে এবার ভয়কে জয় করে এক দোকান কর্মচারীর কাছ থেকে টাকা ও মোবাইল ছিনিয়ে নিয়ে পালিয়ে যাওয়ার সময় স্থানীয়রা এগিয়ে গিয়ে দুই ছিনতাইকারীকে আটক করে। গন ধোলাই দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করা হয় তাদেরকে।
শুক্রবার সকালে এঘটনায় দোকান কর্মচারী মো.আমজাদ হোসেন বাদি হয়ে চকরিয়া থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। এতে চারজনের নাম উল্লেখসহ আরো বেশ কয়েকজনকে আসামী করা হয়েছে।
এজাহারনামীয় আসামীরা হলেন- চকরিয়া উপজেলার বদরখালী ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডের কুতুবদিয়া পাড়ার আব্দুর রহিমের ছেলে মোস্তফা কামাল মনির (১৯), চকরিয়া পৌরশহরের ৮নং ওয়ার্ডের সোসাইটি পাড়ার রফিকুল ইসলামের ছেলে মো.রাফিজুল ইসলাম রাতুল (১৯), একই এলাকার জাফর আলমের ছেলে আরিফ (১৯) ও মনু ড্রাইভারের ছেলে ফাহিম (১৯)।
মামলার বাদী দাবি করেন, দীর্ঘদিন ধরে চকরিয়া পৌরশহরের বালিকা বিদ্যালয় সড়কের দত্ত এন্ড হার্ডওয়ার্ডে চাকুরী করে আসছি। বৃহস্পতিবার দোকান বন্ধ করে বাড়ি যাওয়ার সময় পথরোধ করে আমাকে মারধর করতে থাকে। এসময় আমার সাথে থাকা মোবাইল ও পকেটে থাকা ৫ হাজার টাকা ছিনিয়ে নেয়। আমি চিৎকার করে উঠলে পার্শ্ববর্তী লোকজন এগিয়ে এসে তাদের আটক করে পুলিশে সোপর্দ করে।
স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, পৌরশহরের বালিকা বিদ্যালয় সড়ক, ওয়াপদা সড়ক, বিমান সড়কগুলো এখন ছিনতাইকারীদের দখলে। এই সড়কের কুলিং কর্ণারগুলো তাদের আড্ডার স্থান। তারা প্রায়শ বিভিন্ন লোকজনের কাছ থেকে মোবাইল, নগদ টাকাসহ নানা জিনিসপত্র ছিনিয়ে নেয়। তবে কোন ছিনতাইকারী ধরা পড়লে তাদের ছাড়িয়ে নেয়ার জন্য সিন্ডিকেটের অন্যান্য সদস্যরা হাজির হয়ে যায়। এসময় তারা নানা ধরনের হুমকি-ধুমকি দিতে থাকে।
চকরিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শাকের মোহাম্মদ যুবায়ের বলেন, এক দোকান কর্মচারীর কাছ থেকে মোবাইল ছিনতাই ও মারধরের ঘটনায় মামলা দায়ের হয়েছে। ইতোমধ্যে দুইজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। বাকিদের গ্রেপ্তারে পুলিশের বেশ কয়েকটি টিম কাজ করছে।
তিনি আরো বলেন, পৌরশহরসহ পুরো উপজেলার আইন-শৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণের জন্য পুলিশ কাজ করছে। কেউ অপরাধ করে পার পাবার সুযোগ নেই।

্একাত্তর২৪,নেট/ এমডি উল্লাহ

আপনার মতামত লিখুন :