কৈয়ারবিল-লক্ষ্যারচর বানিয়ারকুম অবহেলিত সড়ক অবশেষে আলোরমুখ দেখছে

Mohammad UllahMohammad Ullah
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  10:19 AM, 18 July 2021
লক্ষ্যারচর বানিয়ারকুম অবহেলিত সড়ক অবশেষে আলোরমুখ দেখছে সংবাদ প্রকাশের পর সংস্কারে এগিয়ে গেলেন সমাজসেবক মামুনুর রশিদ

কৈয়ারবিল-লক্ষ্যারচর বানিয়ারকুম অবহেলিত


সড়ক অবশেষে আলোরমুখ দেখছে সংবাদ প্রকাশের পর সংস্কারে এগিয়ে গেলেন সমাজসেবক মামুনুর রশিদ

চকরিয়া প্রতিনিধি:
কক্সবাজারের চকরিয়া উপজেলার কৈয়ারবিল ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ডের কৈয়ারবিল পূর্ব বানিয়ারকুম-লক্ষ্যারচরের একমাত্র চলাচলের রাস্তাটি বিগত ৪০ বছরে উল্লেখযোগ্য কোন সংস্কার হয়নি। বর্ষাকালীন বন্যায় পলিমাটির প্রলেপ পড়ে মানুষের ভিটা ও চাষের জমি রাস্তা থেকে প্রায় ২ ফুট উঁচু হয়ে যায়। তাই বৃষ্টি হলেই মানুষের ভিটা ও নাল জমির পানি রাস্তায় এসে জমে যায়। এই রাস্তা দিয়ে আর হাঁটা চলার কোন উপায় থাকে না। পূর্ব বানিয়ারকুমের লোকজন মূলত কৃষি নির্ভর। এই রাস্তা দিয়ে প্রতিদিন কৃষকের আনুমানিক ৫০ হেক্টর জমির ফসল প্রতিদিন কাঁধেবয়ে বাজারে নিয়ে যায়। এতে কৃষকের দুর্ভোগের শেষ নেই।
এই রাস্তার দূর্দশার কথা বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রচারের পর মানবিক কারণে দৃষ্টি গোচর হয় কৈয়ারবিল ইউনিয়নের ইসলাম নগর গ্রামের তরুণ সমাজসেবক চেয়ারম্যান প্রার্থী মামুনুর রশিদ মামুনের। তাঁর নজরে আসার পর বিষয়টি আমলে নিয়ে এলাকাবাসীর সহযোগিতায় রাস্তাটি সংস্কার কাজে হাত দেন। স্থানীয় মেম্বার সোলতান আহমদ, সমাজসেবক মিজানুর রহমান টুটুল, জাফর আলম সহ এলাকার বিত্তশালীরা আর্থিক ভাবে, কেউ স্বেচ্ছাশ্রমের ভিত্তিতে সহায়তার হাত বাড়িয়ে দিয়ে জনপ্রতিনিধির দিকে না তাকিয়ে নিজেদের উদ্যোগে রাস্তার প্রায় ১ কিলোমিটার পথ কয়েক লক্ষ টাকা দিয়ে সংস্কার করে দেখিয়ে দিলেন সৎ ইচ্ছা থাকলে এলাকার জনসাধারণ মিলে জনকল্যাণমুখী কাজগুলো করা সম্ভব।
স্থানীয়রা অভিযোগ করে বলেন, কৈয়ারবিল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মক্কী ইকবাল হোসেনকে একাধিকবার বলার পরও তিনি কার্যকর কোন পদক্ষেপ নেয়নি। স্বাধীনতার পর থেকে চেয়ারম্যান আসল-গেল! কিন্তু কোন চেয়ারম্যান রাস্তায় এক কোদাল মাটিও দেইনি। এমনকি দেখতেও আসেনা।
তাই, এলাকাবাসী ও সমাজসেবক মামুনুর রশিদের আর্থিক সহযোগিতায় তারা এই রাস্তাটি সংস্কারকাজ শুরু করেছেন। এই রাস্তা ইয়াংছা-শান্তিবাজার সড়ক এবং ঢাকা-কক্সবাজার মহা সড়কের বাইপাস সড়ক হিসেবে ব্যবহার করা যায়।
সমাজসেবক ও চেয়ারম্যান প্রার্থী মামুনুর রশিদ বলেন, এই রাস্তাটি লক্ষ্যারচর ২নং ওয়ার্ডের হাজী পাড়া হয়ে কৈয়ারবিলের পূর্ব বানিয়ারকুম হয়ে ডলমপীরের মাজারের পাশদিয়ে মহাসড়কে উঠেছে। দুই ইউনিয়নের লোকজনের চলাচলের জন্য গুরুত্বপূর্ণ এই রাস্তাটি সংস্কার করতে পেরে নিজেকে গর্ববোধ করছি।আগামীতেও ইউনিয়নের বিভিন্ন ভাল কাজের সাথে নিজেকে জড়িয়ে রাখতে তিনি আগ্রহ প্রকাশ করেন।
এদিকে, লক্ষ্যারচর হাজী পাড়া অংশ ও ডলমপীর মাজারের সড়কের অংশের চলাচলে কিছুটা বিঘ্ন সৃষ্টি হচ্ছে। লক্ষ্যারচর-কৈয়ারবিল পূর্ব বানিয়ারকুম সড়কের অবশিষ্ট অংশের কাজও একই নিয়মে সংস্কারে এগিয়ে আসতে মামুনুর রশিদের মতো এলাকার অন্যান্য ধনাঢ্য ব্যক্তিদের এগিয়ে আসার আহবান জানিয়েছেন।

আপনার মতামত লিখুন :