চকরিয়ায় জাতীয় পার্টির কর্মী বক্তব্য রাখছেন, কেন্দ্রীয় নেতা শামসুল আলম

।। একাত্তর২৪.নেট।।।। একাত্তর২৪.নেট।।
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  07:43 PM, 21 November 2020
চকরিয়ায় জাতীয় পার্টির কর্মী বক্তব্য রাখছেন, কেন্দ্রীয় নেতা শামসুল আলম।


চকরিয়ায় তৃণমুল কর্মী সমাবেশে——শামসুল আলম
প্রতিকূল পরিবেশ মোকাবিলা করে জাতীয় পার্টি শক্তিশালী রাজনৈতিক শক্তিতে পরিণত হয়েছে



নিজস্ব প্রতিবেদক, চকরিয়া:
ব্যাপক শোডাউন করেছে চকরিয়া উপজেলা জাতীয় পার্টি। চকরিয়া উপজেলা, মাতামুহুরী সাংগঠনিক থানা ও পৌরসভা জাতীয় পার্টির শতশত নেতাকর্মী তৃণমুলের কর্মী সভাকে সমাবেশে রূপ দিয়েছেন। করোনাকালে এতোবড় সমাবেশ আর হয়নি। দীর্ঘদিন পর সিনিয়র নেতাদের পেয়ে অনেকেই পাওয়া না পাওয়া ও সমস্যার কথা তুলে ধরেছেন। দশম জাতীয় সংসদে চকরিয়া-পেকুয়া আসনে দলীয় এমপি থাকার পরও নেতাকর্মীরা সুবিধা বঞ্চিত হয়েছেন। তার কাছে নানাভাবে নির্যাতন ও হয়রানির শিকার হয়েছেন নেতাকর্মীরা। অনেকেই এসবের প্রতিবাদ করতে গিয়ে দলীয় পদ খোয়াতে হয়েছে।
২১ নভেম্বর শনিবার সকাল দশটায় চকরিয়ার জিদ্দাবাজার রয়েল কমিউনিটি সেন্টারে উপজেলা জাতীয় পার্টির আহবায়ক জসিম উদ্দিনের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন, কেন্দ্রীয় স্বেচ্ছাসেবক পার্টির সহ-সভাপতি জহিরুল ইসলাম রেজা।
তৃণমুল কর্মী সমাবেশে প্রধান বক্তা উপজেলা জাতীয় পার্টির সদস্য সচিব ও জাতীয় পেশাজীবি সমাজের কেন্দ্রীয় সদস্য শামসুল আলম বলেন, চকরিয়া-পেকুয়া আসনে বিগত সময়ে দলীয় এমপি থাকার পরও কোন নেতাকর্মীর কাজে আসেনি। বিপদে আপদেও পাওয়া যায়নি। এমপির কাছে গেলে কোন সহযোগিতা করেনি। নেতাকর্মীদের সাথে ভালো আচরণ করেননি তিনি।
তিনি আরও বলেন, চকরিয়া-পেকুয়ার জনগণ পরিবর্তন চায়। নেতৃত্ব পরিবর্তনের মাধ্যমে লাঙ্গল প্রতীক নিয়ে আগামীতে জাতীয় পার্টিকে শক্তিশালী করা হবে। জাতীয় পার্টি ছাড়া আওয়ামীলীগ ক্ষমতায় আসতে পারবে না। গত নির্বাচনে বৃহত্তর স্বার্থে দলীয় মনোনয়নপত্র নেওয়ার পরও মহাজোটের প্রার্থীকে সমর্থন দিয়েছি।
শামসুল আলম বলেন, জাতীয় পার্টিকে আরও শক্তিশালী করতে পারলে আমরা আমাদের স্বকীয়তা নিয়ে রাজনীতিতে একটি জোটের নেতৃত্ব দিতে পারব। রাষ্ট্রক্ষমতা গ্রহণে জাতীয় পার্টি নিয়ামকশক্তি হিসেবে প্রতিষ্ঠিত আছে। আগামীতে জাতীয় পার্টি সাধারণ মানুষের সমর্থন নিয়ে রাষ্ট্র পরিচালনার দায়িত্ব গ্রহণ করতে পারবে।’ দীর্ঘ ২৯ বছরে জাতীয় পার্টি ক্ষমতার বাইরে থেকে ঘাত-প্রতিঘাত ও চাড়াই-উতরাই পেরিয়ে, সব প্রতিকূল পরিবেশ মোকাবিলা করে একটি শক্তিশালী রাজনৈতিক শক্তিতে পরিণত হয়েছে। তৃণমূলের নেতাকর্মীদের মতামত, পরামর্শ এবং শক্তিতে চকরিয়া-পেকুয়া আসনে জাতীয় পার্টি পরিচালিত হবে।

কক্সবাজার জেলা জাতীয় পার্টির সাবেক সদস্য ডাঃ মোঃ সরওয়ার আলমের সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, চকরিয়া উপজেলা জাতীয় পার্টির সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক অধ্যাপক ডাঃ এনামুল হক চৌধুরী, যুগ্ম আহবায়ক এডভোকেট মোঃ ওমর আলী, মাতামুহুরী সাংগঠনিক উপজেলা জাতীয় পাটি আহবায়ক মৌলভী ছিদ্দিক আহমদ মেম্বার, পেকুয়া উপজেলা আহবায়ক এসএম মাহবুব ছিদ্দিক, চকরিয়া পৌরসভা আহবায়ক জসিম উদ্দিন কমিশনার, চকরিয়া উপজেলা যুগ্ম আহবায়ক কাজী আবু ওমর মোঃ ফারুক, নাছির উদ্দিন সুনো ও মাতামুহুরী উপজেলা সদস্য সচিব আবদুর রহিম এমইউপি, চকরিয়া পৌরসভার সদস্য সচিব কাজী নজরুল ইসলাম,

কক্সবাজার জেলা পেশাজীবি সমাজের আহবায়ক এসএম জামাল উদ্দিন, যুগ্ম আহবায়ক হোসনে আলম চৌধুরী, পেকুয়া সদস্য সচিব সাহাব উদ্দিন, টিপু সোলতান, সাইফুল ইসলাম, জোবাইর ইসলাম, ডা: বেলাল উদ্দিন, মাওলানা এহেসান উল্লাহ, মাওলানা রেজাউল করিম, নুরুল আলম, আবদুল মালেক, আবদুল গফুর, ওসামন গণি সওদাগর, মো; ইছাক, সাইফুল ইসলাম, বাদশা মেম্বার, হেদায়তুর রহমান, জিসান উদ্দিন, হেলাল উদ্দিন, মাওলানা সেকাব উদ্দিন মেম্বার, কাজী নাছির উদ্দিন, সোয়েব মো: রুবেল, ডা: নাছির, মোজাফ্ফর মেম্বার, ইমাম হোসেন, মাষ্টার বদিউল আলম, মাষ্টার শফিকুর রহমান, আবদুল জলিল, জাফর আলম, দিদারুল ইসলাম, মনজুর আলম, শফিউল আলম, জহিরুল ইসলাম, নুরুল হাকিম। এছাড়াও জাতীয় পার্টির প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান সাবেক রাষ্ট্রপতি এইচএম এরশাদের রুহের মাগফেরাতের জন্য দুই হাজার নেতাকর্মী ও সমর্থকের জন্য খাবারের আয়োজন করা হয়। উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নের সভাপতি/সাধারণ সম্পাদকসহ বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।
এসময় আগামী উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে সম্ভাব্য চেয়ারম্যান প্রাথী হিসেবে চকরিয়া উপজেলা জাতীয় পার্টির সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক অধ্যাপক ডাঃ এনামুল হক চৌধুরী, পৌরসভা নির্বাচনে পৌরসভা জাতীয় পার্টির যুগ্ম আহবায়ক নাছির উদ্দিন সুনো ও কাউন্সিলর হিসেবে জসিম উদ্দিনের নাম ঘোষণা করা হয়।

আপনার মতামত লিখুন :